‌ঢাকা-বরিশাল ফ্লাইট ৯ বছর পর আবারো চালু হচ্ছে

barisal-airport-online-dhaka-guideঅননিউজডেক্স।।দীর্ঘ ৯ বছর পর ঢাকা-বরিশাল রুটে ৮ এপ্রিল থেকে আবার চালু হচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট। ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে সব প্রস্তুতি। বরিশালে স্থাপন করা হয়েছে বিমানের সেলস্ অফিস। এতে দারুণ খুশি বরিশালবাসী।

বরিশাল বিমান বন্দরের রানওয়ের দৈর্ঘ্য ৬ হাজার ফুট। ছোট ও মাঝারী বিমান চলাচলের জন্য এই রানওয়ে মোটামুটি উপযোগী। ২০০৬ সালের ডিসেম্বরে ঢাকা-বরিশাল রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের বিমান চলাচল অজ্ঞাত কারণে বন্ধ হয়ে যায়। ৯ বছর পর আবার এ রুটে বিমান চলাচল শুরু হচ্ছে বলে জানান, বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের কর্মকর্তা।বরিশাল বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্স ষ্টেশন ম্যানেজার বশিরউদ্দীন বলেন, ‘ইতোমধ্যেই বরিশাল শহরের প্রাণকেন্দ্র সদর রুট এবং বিমান বন্দরে দুটি অফিস খোলা হয়েছে। এখান থেকে বিমানের টিকেট ক্রয় করা যাবে।’

বরিশাল বিমান বন্দর ব্যবস্থাপক হানিফ গাজী বলেন, ‘বিমান ওঠা-নামার জন্য বরিশাল বিমানবন্দর পুরোপুরি প্রস্তুত। যাত্রীদের নিরাপত্তা প্রদানের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

এ খবরে দারুণ খুশি বরিশালবাসী। পাশাপাশি ফ্লাইট নিয়মিত করার দাবি জানিয়েছেন নাগরিক সমাজের নেতারা।

বরিশাল নাগরিক সমাজ যুগ্ম সম্পাদক এনায়েত হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা চাই বাংলাদেশের পতাকাবাহী এই বিমানটি বরিশাল-ঢাকা রুটে নিয়মিত যাতায়াত করুক। এর মধ্যদিয়ে বরিশাল বিভাগসহ দক্ষিণাঞ্চলে নতুন নতুন ব্যবসা-বাণিজ্যের যে দিগন্ত উন্মোচিত হতে যাচ্ছে সেটি আরও প্রসারিত হোক।’

আকাশ থেকে খাদ্যশস্যে কীটনাশক দেয়ার জন্য স্বাধীনতার আগে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুরে নির্মাণ করা হয় এই বিমান বন্দরটি। উন্নয়নের পর ১৯৯৫ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি আব্দুর রহমান বিশ্বাস এই বিমান বন্দরের উদ্বোধন করেন।

পর্যটন ও শিল্পায়নের বিকাশে ঢাকা-বরিশাল আকাশ পথে বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের ফ্লাইট যাতায়াত জরুরী। এর আগে দু দুবার এ রুটে ফ্লাইট চালু করা হয়েছিল বিমানের। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তা বন্ধ হয়ে যায়। এবার তৃতীয় দফায় তা চালুর পর এই বিমানের রুট অব্যাহত থাকবে, এমনটাই মনে করেন বরিশালবাসী।

-অননিউজ/সম্পাদনা/এস,বি/২ এপ্রিল ১৫