সদস্য দেশগুলোর জন্য বাড়ছে ফিফা’র বরাদ্দকৃত অর্থ

fifa-congress-53181স্পোর্টস ডেস্ক ।। সদস্য দেশগুলোর জন্য ফিফা’র বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ বাড়ছে উল্লেখযোগ্য হারে। সাংগঠনিক দক্ষতা সহ ফিফা’র বেধে দেয়া শর্ত পূরণ করতে পারলে বছরে সাড়ে ১২ লাখ মার্কিন ডলার পাবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। আগে যা ছিলো মাত্র আড়াই লাখ মার্কিন ডলার। মেক্সিকোতে অনুষ্ঠিত ফিফা কংগ্রেস থেকে দেশে ফিরে আজ বিষয়টি জানান বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ।

ফিফার ৬৬ তম কংগ্রেস থেকে যেন সুখবরের ডালি নিয়েই দেশে ফিরলেন বাফুফে কর্তারা। সদস্য দেশগুলোকে ফিফা’র দেয়া বাৎসরিক অর্থের পরিমাণ বাড়ছে কয়েকগুণ। তবে তার জন্য পূরণ করতে হবে বেশ কিছু শর্ত। বরাদ্দকৃত ৫ লাখ মার্কিন ডলারের মধ্যে ১ লাখ ডলার সব ফেডারেশনগুলো পাবে এমনিতেই। কিন্তু, বাকি ৪ লাখ ডলার পেতে দেখাতে হবে সাংগঠনিক দক্ষতা।

বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেন, ‘একটি মেম্বার অ্যাসোসিয়েশন বছর শেষে দেখা যাবে সাড়ে ১২ লাখ ইউএস ডলার নিতে পারবে। ১০টি প্যারামিটার ঠিক করে দেয়া রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল মেনস ও উইমেনস লিগ অথবা কম্পিটিশন থাকতে হবে। বয়েজ এবং গার্লস চ্যাম্পিয়নশিপ অথবা টুর্নামেন্ট থাকা। উইমেনস ফুটবল ডেভলমেন্টের একটি রূপরেখা থাকতে হবে ওই সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনের। সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনের ফুটবল ডেভলেপমন্টের একটি রূপরেখা থাকতে হবে এছাড়া ফুল টাইম টেকনিক্যাল ডিরেক্টর, ফুল টাইম জেনারেল সেক্রেটারি বা সিইও থাকতে হবে।’

এছাড়া, জাতীয় দলগুলোর জন্য আছে আড়াই লাখ ডলার। কনফেডারেশনগুলোর জন্য অনুদান বেড়ে হয়েছে বার্ষিক ১০ লাখ মার্কিন ডলার। সে হিসেবে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন বা সাফ সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের সামনে সুযোগ রয়েছে নিজ দেশের ফুটবলকে আরো এগিয়ে নেয়ার। আর যে কোনো একটি প্রজেক্ট আনতে পারলে, অন্তত ৫ লাখ মার্কিন ডলার পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু, কাজী সালাউদ্দিনের পরিচালনা পর্ষদ এর আগে ২ মেয়াদের ৮ বছরে ফিফার অধীনে মাত্র ৪টি প্রজেক্ট সফলভাবে করতে পেরেছে। বরিশাল ও কক্সবাজারে ফিফার সুনামি প্রজেক্ট করার সুযোগ থাকলেও, তা হয়নি। এবার কি তা করে দেখাতে পারবে পুনর্নির্বাচিত এই পরিচালনা পরিষদ?

দেশের ফুটবলের সার্বিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা করতে বৃহস্পতিবার বাফুফে কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা ফিফা’র ডেভেলপমেন্ট অফিসার সাজি প্রভাকরের।

– সম্পাদনা/অননিউজ/এ.এইচ.রনি/১৯মে’২০১৬